একজন শাহরিয়ার কবির ও একজন ধুরন্ধর দুর্নীতিবাজ কাজী ফিরোজ রশীদ….

Chapai Chapai

Tribune

প্রকাশিত: ১:০৯ পূর্বাহ্ণ, জানুয়ারি ২৬, ২০২১

ওয়াহিদুর রহমান শিপুঃশাহরিয়ার কবির বাংলাদেশের একজন খ্যাতনামা লেখক, সাংবাদিক, প্রামাণ্যচিত্র নির্মাতা। ১৯৫০ খ্রিস্টাব্দের ২০ নভেম্বর তিনি ফেনীতে জন্মগ্রহণ করেন। লেখক হিসেবে তার প্রধান পরিচয় তিনি একজন শিশুসাহিত্যিক।

তাঁর নির্মিত প্রামাণ্যচিত্রের মধ্যে জিহাদের প্রতিকৃতি অন্যতম। তিনি প্রথম মৌলবাদিদের চক্ষুশূল হউন আশির দশকে “একাত্তরের ঘাতক ও দালালরা কে কোথায়?” সম্পাদনা করে তারপর তিনি আবার সম্পাদনা করেন “একাত্তের অবিরাম রক্তক্ষরণ” তখন ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির আহবায়ক ছিলেন মুসতারি নামের একজন অর্বাচীন। এই মহিলা ফ্রিডম পার্টির পাণ্ডাদের তথা বঙ্গবন্ধুর হন্তারকদের নিয়ে গুলসানে এক হহাফেজ খানা করলো। রনাঙ্গনের বীর মুক্তিযোদ্ধা শাহারিয়ার কবির প্রতিবাদ করলেন লিখলেন এদের বিরুদ্ধে তখনই রাষ্ট্রীয় পৃষ্ঠপোষকাতায় মুসতারি একটা বই লিখেন এবং এখানে সে বললো কবির নাকি মুক্তিযুদ্ধকালিন সময়ে পাকিদের ক্যাম্পে মুরগী সাপ্লাই দিতেন এইটা লুফে নেয় রাজাকার আর তাদের দোসররা।

    চলে অপপ্রচার …এখনো বাঁশের কেল্লা, সালাউদ্দিনের ঘোঁড়া থেকে এই অপপ্রচার অব্যহত আছে বটে । শাহারিয়ার কবির একজন শহীদ পরিবারের সন্তান। শহিদুল্লাহ কায়শার ও জহির রায়হান তাঁর ভাই জানেন? তিনি করবেন পাকিদের মুরগী সাপ্লাই? এটাও মানতে হবে? বিশ্বাস করতে হবে?

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে আনুষ্ঠানিক শিক্ষা সম্পূর্ণ করে শাহরিয়ার কবির ১৯৭২ সালে সাপ্তাহিক বিচিত্রায় সাংবাদিক হিসেবে যোগদান করেন এবং ১৯৯২ সাল পর্যন্ত নির্বাহী সম্পাদক পদে থাকেন। তিনি একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির সাথে যুক্ত আছেন।

আর কাজি ফিরোজ রশিদ! জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য। ৭ মে ১৯৮৬ সালের তৃতীয় ও ৩ মার্চ ১৯৮৮ সালের চতুর্থ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে জাতীয় পার্টির প্রার্থী হিসেবে গোপালগঞ্জ-৩ আসন থেকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন।

তিনি ৫ জানুয়ারি ২০১৪ সালের দশম ও ২০১৮ সালের একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে জাতীয় পার্টির প্রার্থী হিসেবে ঢাকা-৬ আসন থেকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়।

এছাড়া সে বাংলাদেশ সার্ফিং অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি। তিনি বাংলাদেশ সিনেমা হল মালিক অ্যাসোসিয়েশনেরও সভাপতি। সিনেমা হলের পয়শা খেয়ে মোটাতাজা হয়ে এখন করবেন নাস্তিক নির্মুল কমিটি?ঘাতক দালাল নির্মুল কমিটি বিলুপ্ত করবেন? আপনি তো একজন ভণ্ড এবং দুর্নীতিবাজ।

আপনার বিরুদ্ধে পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী মোহাম্মদ আলীর বাড়ী দখলের অভিযোগ রয়েছে, যে বাড়িতে সে ভাড়া ছিলো।২০১৬ সালের ৬ এপ্রিল বাংলাদেশ দুর্নীতি দমন কমিশন তার বিরুদ্ধে কানাডার সাবেক হাই কমিশনার মোহাম্মদ আলীর জমি জালিয়াতির জন্য মামলা করে। তিনি ১৯৭৯ সালে জমির জাল দলিল তৈরি করেছিলেন। ২০১৭ সালে সে দুদকের বিরুদ্ধে রিট করলে তা হাইকোট বিভাগ খারিজ করে দেয়।২০১৮ সালের নভেম্বর থেকে অদ্যবধি মামলা চলমান রয়েছে।

লেখকঃ
ওয়াহিদুর রহমান শিপু
যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক
একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটি,
চাঁপাইনবাবগঞ্জ শাখা।

লেখক।

পোস্টটি শেয়ার করুন