গোমস্তাপুরে যাতাযাতের রাস্তা বন্ধ করে প্রকল্প বাস্তবায়নের অভিযোগ

Chapai Chapai

Tribune

প্রকাশিত: ৯:৩৬ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ৮, ২০২১

গোমস্তাপুর(চাঁপাইনবাবগঞ্জ) প্রতিনিধিঃ চাঁপাইনবাবগঞ্জের গোমস্তাপুরে যাতাযাতের রাস্তা বন্ধ করে প্রকল্প বাস্তবায়ন করার অভিযোগ পাওযা গেছে। এর প্রতিকার চেয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার গোমস্তাপুর চাঁপাইনবাবগঞ্জ বরাবর,গোমস্তাপুর উপজেলার পার্বতীপুর ইউনিয়নের পশ্চিম জগত গ্রামের মৃত খোদা বখসের ছেলে কলিমুদ্দিন অভিযোগ করেন।

ঘটনার বিবরণে জানা গেছে, গত ১৯৯২ সালের ২১ মার্চ জেলা প্রশাসক চাঁপাইনবাবগঞ্জের পক্ষে দাতা রহমান আলী সরদার তার পূর্বের বিনিময় সূত্রে সম্পত্তির মালিক খোদা বখস, পিতা মৃত আব্দুল আজিজ ভোগ দখল করিয়া আসছে । জগত মৌজার আর.এস. খতিয়ান নম্বর-১;জেল নম্বর-১১৯,দাগ নং-১৭৭,১৭৮,১৭৯ ও ১৭৫ এ চারটি দাগে মাটি এক নম্বর খাস খতিয়ান ভুক্ত সম্পত্তি এবং জমাকৃত মাটি মৌজা জগত দাগ নম্বর -১৮০ ও ১৮১ পিতার পৈতৃক সুত্রে জমির মালিক কলিমুদ্দিন এর মাটি সহ উল্লেখিত দাগের জমি ভূমি অফিসের এক নম্বর খাস খতিয়ানভুক্ত সম্পত্তি জেলা পরিষদের প্রকল্প দিয়ে এক নম্বর খাস খতিয়ান ভুক্ত জমি জবর দখল করছে ওই ইউনিয়নের পশ্চিম জগত জামাত কমিটি,যা ঘটনা স্থলে সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়।

এ বিষয়ে অভিযোগ পেয়ে গত ১৯জানুয়ারি পার্বতীপুর ইউনিয়ন ভূমি অফিসের ইউনিয়ন ভূমি কর্মকর্তা সাইফুল ইসলাম ঘটনা স্থলে সরেজমিনে পরিদর্শন করে মসজিদ কমিটির সভাপতি আনোয়ার হোসেনকে উল্লেখিত জমির উপর দিয়ে গাড়ী বের হওয়ার রাস্তা ছেড়ে বাউন্ডারির ওয়াল করার জন্য সিদ্ধান্ত দেন।
কিন্তু ইউনিয়ন ভূমি কর্মকর্তার নির্দেশ উপেক্ষা করে জোরপূর্বক কাজ করে যাচ্ছে বলে জানা যায়।

বিষয়টি নিয়ে উপজেলা সহকারী কমিশনার ভূমি শাহরিয়ার নজির এর সাথে যোগাযোগ করা হলে, তিনি তাৎক্ষণিক পার্বতীপুর ইউনিয়ন ভূমি কর্মকর্তা সাইফুল ইসলাম কে সরেজমিনে জায়গাটি পরিদর্শন করে লিখিত প্রতিবেদন জমা দেওয়ার জন্য উপজেলা ভূমি অফিসকে নির্দেশ প্রদান করেন।

তিনি আরো বলেন,লিখিত প্রতিবেদন পাওয়ার পরে এক নম্বর খাস খতিয়ান ভূক্ত সম্পত্তিতে জেলা পরিষদের প্রকল্প হয়ে থাকলে লিখিত আকারে জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবর প্রকল্প বন্ধ করার জন্য আবেদন করা হবে।

এ বিষয়ে জেলা পরিষদের বাউন্ডারী ওয়াল নির্মাণ প্রকল্পের সভাপতি আমির হোসেনের সাথে যোগাযোগ করলে তিনি বলেন প্রকল্পটি জেলা পরিষদের সদস্য কবির খানের তাই তার সাথে যোগাযোগ করতে বলেন।

জেলা পরিষদ সদস্য কবির খানের সাথে মোবাইলে যোগাযোগ করা হলে বলেন কবর স্থানে প্রকল্প দেয়া হয়েছে খাস খতিয়ান ভুক্ত জমিতে প্রকল্প দেয়া হয়নি।

পোস্টটি শেয়ার করুন