চাঁপাইনবাবগঞ্জে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে ইউপি সদস্যের হাত ভেঙে দিয়েছে প্রতিপক্ষ

Chapai Chapai

Tribune

প্রকাশিত: ৬:৩৫ অপরাহ্ণ, আগস্ট ১০, ২০২০

আব্দুল ওয়াহাবঃ চাঁপাইনবাবগঞ্জে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে ইউপি সদস্যের উপর হামলা করে হাত ভেঙে দিয়েছে প্রতিপক্ষের লোকজন । অাহত ইউপি সদস্য হলেন সদর উপজেলার বালিয়াডাঙ্গা ইউনিয়ন পরিষদের ০৮ নং ওয়ার্ড সদস্য মো. নুরুল ইসলাম বজু।
ইউপি সদস্য ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, বালিয়াডাঙ্গা ইউনিয়নের পিয়ারাপুর গ্রামের আবুল কাশেমের ছেলে রিকসাচালক ইব্রাহিম (৩০) ধার নেয়া বাবদ ইউপি সদস্য নুরুল ইসলামের কাছে ১২০০ টাকা পায়। শিমুলতলার বেলতলা এলাকায় সেই টাকা শুক্রবার সন্ধ্যার পর পরিশোধ করার কথা থাকলে টাকা নিতে গিয়ে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ শুরু করে ইব্রাহিম। এরপর এমন আচরণে ক্ষুব্ধ হয়ে ইব্রাহিমের উপর থাপ্পড় তুলেন ইউপি সদস্য নুরুল ইসলাম। এসময় আশেপাশে থাকা লোকজন উত্তেজনা থামানোর চেষ্টা করে এবং দুজনকে নিরাপদে সরিয়ে দেয়। 
ঘটনার কিছু সময় পর লোকজন নিয়ে এসে ইউপি সদস্য নুরুল ইসলাম বজুর উপর সন্ত্রাসী হামলা চালায় ইব্রাহিম ও তার লোকজন। দেশীয় বিভিন্ন অস্ত্র নিয়ে হামলার সময় ইউপি সদস্য নুরুল ইসলামের বাম হাতে আঘাত পায়। পরে এক্স-রে রিপোর্টে জানা যায়, হাত ভেঙ্গেছে নুরুলের। বর্তমানে প্লাস্টার অবস্থায় রয়েছে নুরুলের হাত। এনিয়ে সদর মডেল থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন ইউপি সদস্য নুরুল ইসলাম।

আহত ইউপি সদস্য নুরুল ইসলাম বজু বলেন, ইব্রাহিমের সাথে আমার কোন ঝামেলা ছিল না। বিভিন্নভাবে চলাফেরায় তার থেকে ২২০০ টাকা ধার নেয়। ১ হাজার টাকা পরিশোধও করি। বাকি টাকা শুক্রবার সন্ধ্যায় দিতে চেয়েছিলাম। কিন্তু টাকা নিতে এসে অন্য কারো ইন্ধনে উল্টো সেই আমার প্রতি হামলা করে। নুরুল ইসলাম আরো জানান, স্থানীয় একটি চক্র গত নির্বাচনে পরাজিত হয়ে এবং আগামী নির্বাচনে আমাকে কোনঠাসা করতেই ইব্রাহিমকে দিয়ে হামলা চালিয়েছে। সেই সাথে সাংবাদিক ভাইদের মিথ্যা তথ্য দিয়ে আমাকে মেরে উল্টো আমার বিরুদ্ধেই একটি ভুয়া সংবাদ প্রকাশ করেছে। সংবাদটিতে বিধবা ভাতা, বয়স্ক ভাতা, সরকারি বরাদ্দে বাড়ি নির্মাণে অর্থ নেয়ার যেসব অভিযোগ করা হয়েছে, তা সম্পূর্ণভাবে ভুয়া, মিথ্যা ও সাজানো।

তিনি বলেন, ইউপি সদস্য নির্বাচিত হওয়ার পর হতে সততা, নিষ্ঠা ও দায়িত্ববোধ থেকে এলাকার জনসাধারণের উন্নয়নে কাজ করছি। একটি কুচক্রি মহল আমার সম্মানহানি ও হয়রানি করতেই আমার উপর এমন সন্ত্রাসী হামলা ও ভুয়া সংবাদ প্রকাশ করেছে। এখন পর্যন্ত ইব্রাহিম ও তার পরিবারকে ১০ কেজির চালসহ সকল সরকারি সুবিধা শতভাগ সচ্ছতার ভিক্তিতে দিয়েছি। এসময় ইউপি সদস্যের উপর সন্ত্রাসী হামলার প্রতিবাদ ও বিচারের দাবি জানান তিনি।

তবে ইউপি সদস্যের উপর হামলার বিষয়টি অস্বীকার করে রিকসাচালক ইব্রাহিম। উল্টো তার নিজের উপর হামলার অভিযোগ করেন তিনি। 

তবে ইউপি চেয়ারম্যান তরিকুল ইসলাম বিষয়টি স্থানীয়ভাবে সমাধানের চেষ্টা করছেন ও আগামী রবিবার সালিশে বসার কথা রয়েছে বলে জানা গেছে। বালিয়াডাঙ্গা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. তরিকুল ইসলামের বক্তব্য নেয়ার জন্য কয়েকবার ফোন দেয়া হলেও তিনি ফোন রিসিভ করেননি।
মুঠোফোনে সদর থানার অফিসার-ইন-চার্জ (ওসি) মোজাফফর হোসেন বলেন, ইউপি সদস্যের অভিযোগ পেয়েছি। প্রাথমিক তদন্ত শেষে জানা গেছে, ছোট্ট একটি ভুল বুঝাবুঝি থেকে ঝামেলাটি হয়েছে। ঘটনাটি বড় ধরনের কোন সংঘর্ষ নয়। তাই স্থানীয়ভাবেই এর সমাধানের প্রক্রিয়া চলমান রয়েছে।

পোস্টটি শেয়ার করুন