তুচ্ছ বিষয় নিয়ে চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর উপজেলার ইসলামপুরে দুই গোষ্ঠীর সংঘর্ষে নিহত ২

Chapai Chapai

Tribune

প্রকাশিত: ১২:২৫ পূর্বাহ্ণ, এপ্রিল ১০, ২০২১

বিশেষ প্রতিনিধিঃ চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর উপজেলার ইসলামপুর কাজিপাড়ায় পূর্ব শত্রুতার জের ধরে তুচ্ছ বিষয় নিয়ে দুই গ্রুপের সংঘর্ষে উভয় পক্ষের একজন করে দুইজন নিহত ও উভয় পক্ষের ৯ জন গুরুতর আহত হয়েছে। এই ঘটনায় ৮ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

শুক্রবার সকালে ট্যাফে ট্রাক্টর চালানোর রাস্তা নিয়ে গন্ডগোলের সূত্রপাত ঘটে। কথা কাটাকাটি র এক পর্যায়ে দুই গোষ্ঠী (দফাদার ও হাঁচড়ি) মধ্যে দফাদার বংশের পক্ষে জালাল মেম্বারের নেতৃত্বে তার ছেলে অসিম, ইয়াসিনের ছেলে শরীফ, ওয়াসিমের ছলে ইকবাল, আলাউদ্দিনের ছেলে নাইমসহ ৪০-৫০ জন দেশীয় ধারালো অস্ত্র, রামদা ও লাঠিসোটা সহ হাচড়ি বংশের লোকজনের বাড়ি আক্রমন করে। এতে উভয় পক্ষের ৯ জন বিভিন্ন জখম সহ গুরুতর আহত হয়। এসময় দফাদার বংশের আব্দুর রহমানের চোখে ইট লাগলে তার মৃত্যু হয়। তার কিছুক্ষণ পর হাচড়ি বংশের মনসুর আলী মন্ডল মারা যায়। পরিবারের লোকজনের দাবি আমাদের বাড়ির উপর হামলা করে আঘাতজনিত কারনে মৃত্যু হয়েছে।

আব্দুর রহমান নিহত হওয়ার ঘটনায় আব্দুল জব্বার বাদী হয়ে ৩৭জনের নাম উল্লেখ সহ অজ্ঞাত ৮-১০ জনের নামে হত্যা মামলা দায়ের করে।

পরে পুলিশ এই ঘটনায় ৮ জনকে গ্রেফতার করে।
তবে এলাকাবাসীর অভিযোগ, এই ঘটনায় অনেক নিরীহ মানুষ কে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

নিরপরাধ মানুষদের গ্রেপ্তার বিষয়ে দায়িত্বরত পুলিশ কর্মকর্তাকে জিজ্ঞাসা করলে উক্ত পুলিশ বলে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে ছেড়ে দেওয়া হবে।

স্থানীয়রা জানায়, দীর্ঘদিন থেকে এই দুই গোষ্ঠীর গন্ডগোল মারামারি লেগে আছে। দুই পক্ষের গন্ডগোলের দুইজন মারা যায়। এর একজন আব্দুর রহমান ও অপরজন মুনসুর আলী মন্ডল।

হাচড়ি বংশের নিহত মুনসুর আলীর বয়স বেশি হওয়ায় তার পরিবারের লোকজনকে বিভিন্নভাবে হুমকি দিয় দিয়ে মৃত্যু কিছুটা স্বাভাবিক বলে চালানোর জন্য চাপ দেয় বিপরীত পক্ষ। একাধিক সূত্রে জানা যায়, আঘাত জনিত কারনেই উক্ত মনসুর আলী মন্ডল মারা গেছে।

এলাকাবাসীর অভিযোগ জসিম দলীয়( দফাদার গোষ্ঠী) প্রভাব খাটিয়ে মনসুর আলী মন্ডলের পরিবার কে বিভিন্ন ভয়ভীতি দেখিয়ে স্বাভাবিক মৃত্যু স্বীকার করাতে বাধ্য করেছে।

তবে হাচড়ি বংশের ইসরায়েল হক জানান, আমাদের একজন ব্যক্তি নিহত হওয়ার ঘটনায় আমরা মামলা দায়ের করা র আগেই বিপরীত পক্ষ আমাদের উপর হত্যা মামলা দেয়। একারণে থানায় গিয়ে মামলা করতে পারিনি, তবে কোর্টে আমরা মামলা করবো।

পোস্টটি শেয়ার করুন