ভোটগ্রহণ কাল, কে হবেন রহনপুরের পৌর পিতা??

Chapai Chapai

Tribune

প্রকাশিত: ৯:৩৯ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ২৯, ২০২১

গোমস্তাপুর (চাঁপাইনাবগঞ্জ) প্রতিনিধিঃ রাত পোহালে ৩০ জানুয়ারী তৃতীয় ধাপের রহনপুর পৌরসভার নির্বাচন। নির্বাচনকে সামনে রেখে সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে নির্বাচন অফিস।

কে হতে যাচ্ছেন রহনপুর পৌর পিতা?
এ নিয়ে পাড়া-মহল্লা থেকে শুরু করে চায়ের দোকানে বসে সাধারণ ভোটারদের মাঝে চলছে চুল ছেড়া বিশ্লেষণ।

    প্রধান দুই দল আওয়ামী লীগ ও বিএনপি’র দলীয় প্রার্থীদের দুশ্চিন্তা নিজ দলের বিদ্রোহী প্রার্থীদের নিয়ে।আওয়ামী লীগের দলীয় প্রার্থী গোলাম রাব্বানী বিশ্বাস তার নিজ জয়ের বিষয়ে আত্মবিশ্বাসী। তিনি মনে করেন পিছিয়ে পড়া রহনপুরের উন্নয়নের জন্য নৌকায় মানুষ ভোট দিবে। শেখ হাসিনার সিদ্ধান্তের প্রতি দলীয় নেতাকর্মীরা সম্মান রাখবে।

    সরেজমিনে দেখা যায়,আওয়ামী লীগের অনেক নেতাকর্মী বিদ্রোহী প্রার্থী মতিউর রহমান খান এর প্রচারণায় অংশগ্রহন করছে। নৌকার পক্ষে ছাত্রলীগের কার্যক্রম ব্যাপকভাবে চললেও পৌর আওয়ামী লীগ ও যুবলীগের নেতাকর্মীদের ততটা তৎপরতা ছিলো না।

তবে শেষ কয়েকদিনের প্রচারণায় নৌকার প্রার্থী এগিয়ে।
এদিকে বিএনপি সমর্থিত মেয়র প্রার্থী তারিক আহমেদও দুশ্চিন্তায় আছে নিজ দলের বিদ্রোহীদের নিয়।বিএনপির একটা বড় অংশ বিদ্রোহী প্রার্থী ডাঃ মফিজের প্রচারণায় ছিলো।তার সাপোর্ট হিসেবে প্রত্যক্ষভাবে জড়িত উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান ও উপজেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি বাইরুল ইসলাম। এছাড়াও বিএনপির আরেক বিদ্রোহী প্রার্থী আশরাফুল হকও বিএনপির ভোটে ভাগ বসাবে।
সবমিলিয়ে কে হতে যাচ্ছেন পৌর মেয়র তা ভোটের ফলাফল ঘোষণা ছাড়া বোঝা যাচ্ছে না৷

তবে বিশ্লেষক দের মতে নৌকা ও ধানের শীষের মধ্যে প্রতিদ্বন্দ্বিতা হবে। চামচ প্রতীকও প্রতিদ্বন্দ্বিতায় থাকতে পারে।

এবার রহনপুর পৌরসভার মেয়র পদে ৭ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন,এরা হলেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী গোলাম রাব্বানী বিশ্বাস (নৌকা) প্রতীকে,বিএনপি মনোনীত প্রার্থী তারিক আহমদ (ধানের শীষ) প্রতীকে,স্বতন্ত্র আওয়ামীলীগ বিদ্রোহী প্রার্থী মতিউর রহমান খান (চামুচ) প্রতীকে, বাংলাদেশ কংগ্রেস মনোনীত প্রার্থী জোহনা খাতুন (ডাব) প্রতীকে, প্রতীকে, স্বতন্ত্র বিএনপি বিদ্রোহী ডা. মফিজউদ্দিন (নারিকেল গাছ) ও অপর বিদ্রোহী আশরাফুল হক (জগ)প্রতীকে এবং আরেকজন স্বতন্ত্র প্রার্থী নুরে আলম সিদ্দিকী (মোবাইল ) প্রতীকে।

এছাড়া সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর পদে ১৭ জন ও সাধারণ কাউন্সিলর পদে ৪৩ জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। মহানন্দা ও পূনর্ভবা নদী সংলগ্ন রহনপুর পৌরসভা। ১৯৯৫ সালের ১ জানুয়ারী প্রতিষ্ঠিত হয় এ পৌরসভা। প্রতিষ্ঠিত হবার আগে গোমস্তাপুর ও রহনপুর ইউনিয়নের অন্তর্ভুক্ত ছিল। রহনপুর,হুজরাপুর,খয়রাবাদ ও প্রসাদপুর ৪টি মৌজা নিয়ে গঠিত হয় এ পৌরসভা। বর্তমানে রহনপুর পৌরসভা ‘ক’ শ্রেণীতে উন্নীত ।

পৌর এলাকার বিভিন্ন পাড়া-মহল্লার অলিগলিতে মেয়র, সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর ও সাধারণ কাউন্সিলর প্রার্থী সমর্থকদের পদচারণায় প্রচারনা সম্পন্ন হয়ে এখন ভোট প্রদানের অপেক্ষায় সাধারণ ভোটাররা।

সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তা ও গোমস্তাপুর উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা সিরাজুল ইসলাম জানান, রহনপুর পৌরসভা নির্বাচন সুষ্ঠভাবে সম্পন্ন করতে সব ধরনের প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে। ১১ টি ভোট কেন্দ্রে ৭৬টি বুথে ১১ জন প্রিজাইডিং কর্মকর্তা,৭৬ জন সহকারী প্রিজাইডিং কর্মকর্তা ও ১’শ ৫২ পোলিং কর্মকর্তা নিয়োজিত থাকবে। ম্যাজিস্ট্রেটসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনী মাঠে থাকবে।

তিনি আশা করছেন সকল ভোটারের উপস্থিতিতে একটি সুষ্ঠ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। এ নির্বাচনে মেয়র পদে ৭ জন, সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর পদে ১৭ জন ও সাধারণ কাউন্সিলর পদে ৪৩ জন প্রার্থী প্রতিদ্বদ্বিতা করছেন। মোট ভোটার সংখ্যা ২৭ হাজার, ৯৭ জন।
তন্মধ্যে পুরুষ ভোটার ১৩ হাজার,১’শ ৮৪ জন ও মহিলা ভোটার ১৩ হাজার, ৯’শ ১৩ জন। ।অন্যদিকে ভোটাদের আগ্রহের কমতি নেই। প্রার্থীদের হিসাব নিকাশ কষতে শুরু করেছেন।

তবে ভোটাররা এবার ভেবে চিন্তে যোগ্য প্রার্থীকে ভোট দিবেন বলে অভিব্যক্ত করেছেন। তবে দলীয় না স্বতন্ত্র বিদ্রোহী প্রার্থী আগামী ৫ বছরের জন্য রহনপুর পৌর অভিভাবক কে হবেন তা ৩০ জানুয়ারী সাধারণ ভোটারে ভোটাধিকারের মাধ্যমে জানা যাবে।

পোস্টটি শেয়ার করুন